ভুত্তো গোরু ধুমো দেনা

ভুত্তো গোরু বামত এল’
জেয় জেয় বেঘে ঘিরিয়োয়,
দরি ল’ বনা বনা
জেয় জেয় বেঘে বানিয়োয়।

দরি সিনি গেলগোয়
আক্সুওয় থাগ’ ঘিরিনেয়,
হাঝি আন’ হাক থিগে
বান’ এবার ঘিরিনেয়।

ভুত্তো গোরুর ভুদোর বল
হাঝি সিনি জেবার চা’র,
এবার আন’ এহ্‌দোর ধুমো
ধর ধর আরকবার।

ধুমো এল’ গোদেল গোদেল
ভিরি পিজি বানিলঙ
তুও গেলগোয় ধুমো সিনি
বেনামা বল ফেলেলঙ।

তুক্কো তুক্কো

তুক্কো তুক্কো –

হি বাভা?

মিধে হত্তে?

না বাভা।

মিঝে হত্তে?

না বাভা।

আ গোরি দেঘা –

হা হা হা।

(আরাঙ আরুকঃ Johnny Johnny)

ধ্যে ধ্যে

ধ্যে ধ্যে নাকধবা
ধরি আন্নোয় হহ্‌রা গুই,
ধ্যে ধ্যে আহ্‌তধবা
ধরি আন্নোয় পান্যে দুর।

ধ্যে ধ্যে ভঙরা
ঝারবুও বিলেই ধাবাগোয়,
ধ্যে ধ্যে চঙরা
চিল্লো এঝের ঝাবাগোয়।

ধ্যে ধ্যে রাঙ্যে
জুমোত জাদে সাঙেত জা,
ধ্যে ধ্যে কাল্যে
ইজোরো মাধাত আধার খা।

আয় বান্দরি জা বান্দরি

আয় বান্দরি জা বান্দরি
পানি আন্নোয় সরাত্থুন।
আয় বান্দরি জা বান্দরি
দারভুও আন্নোয় ঝারত্থুন।

আয় বান্দরি জা বান্দরি
তোন তোগা জা রান্যে ভুই।
আয় বান্দরি জা বান্দরি
মাচ ধল্লোয় জা সাগি লুই।

বিলেয় পুচ্চুঙ

বিলেয় পুচ্চুঙ লায় লায় লায়
দারি মুরেয় দুওঙ ইধু আয়।
বিলেয় পুচ্চুঙ লায় লায় লায়
হান তানি দুওঙ ইধু আয়।
বিলেয় পুচ্চুঙ লায় লায় লায়
পিত পুচ্চ্যেয় দুওঙ ইধু আয়।
বিলেয় পুচ্চুঙ লায় লায় লায়
লেঝত ধরঙ ইধু আয়।
বিলেয় পুচ্চুঙ লায় লায় লায়
সিদেন তাগি হুধু জায়?

বর পেদেলা

বর পেদেলা বর মেদেরা
অঘিত বঝি আঘে,
বর পেদেলা বর মেদেরা
অঘি ভাঙি পরে।

আগার’ আদামর বলি ঝাগে
এহ্‌দে আদামর বলি ঝাগে
ন’পারিলাক ফিরি তুলি তারে।

(আরাঙ আরুকঃ Humpty Dumpty)

চিগোন গল্প – রবীন্দ্র নাথ ঠাকুর

চিগোন পরান, চিগোন দুক, চিগোন দুঘর হধার থুপ
পরাক পরাক উজু উজু,
আহ্‌জার আহ্‌জার ঈদোদর পানি, পত্তিদিন জার গঙি
তারই চোঘপানি হিঝু।
নেই হাবিল হধার হরঙা, নেই ঘদনার জাল বুনোনা
নেই ভেত, নেই উপদেচ,
মনর থাচ জাগি থেব’, আজের অহ্‌লে মনে অহ্‌ব’
সেজত জে’ন ন’অহ্‌ল’ তে সেচ।

আদরি

ফুল সদক চাকমা

।।১।।

আদরি নাঙান জেক্কে তা বোরোঙাভুও আদরি থোই দের সেক্কে তে পারাপাং সবনেয়ো ভাবি ন’পারে সে নাঙানর লাজে তা নাদিন্নো্র একদিন মাদি লঘে মিঝি জেবার পরানে হ’ভ’। চিগনোত্থুন ধরিনে আদরি এক্কেনা চামাত্যে। তার ব’চ দি মাহ্‌চ বিদি ন’ জাদে হরঙা-পিজেঙা-জেদেঙাগুনো মুওত আদরর আদরি নাঙান আদুরি ওহ্‌ই উদিলো।

পাচ বঝর বয়জত তে জানি পারিলো তা নাঙান এগপরা দোল নেই – লাচ গরে পারা। আদামর ইচকুলোত ক্লাস থ্রিত উদিনেই অনেক হোজোলি, ভালক রেত ভাত ন হেনেই ঘুম জানা আ হয়েক পিলে চোঘো পানির বদলে তে তা বাবরে রাজি গরেল তা নাঙান ইচকুলোত আদরির বদলে ফুলরানি গরি দিবেল্লোত্যেই।

আদরি হাগোজে-পত্রে তা দোলনেই নাঙানত্থুন সোরান পেল। মাত্তর হামে-হরজে সোরান ন’ পেল। ঘরত-বারে, ঘরবুও-আদাম্যে ভেক্কুনে তা সে আদুরি নাঙানোই চিতনপুচ্যে গোরি ধরি রাঘেলাক।

Continue reading

দুক ফাঙ – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


আয় দুক, আয় তুই,
তত্য়েই পাদি থোয়োঙ পাদি,
পরানর পত্তি নারি তানি তানি সিনি
থাচ মারেচ পত্তি সিনি জেয়ে নারি চুঝি
ফুদো ফুদো লো তুই চুঝিচ পরান ভরি
মা সান পালেম তরে তজিম আল্য়েঙে গরিহ।
পরান আয় তুই আয় ঝাদি।

সুনজুগে জেবেঘি ঘুম মর মনর ওজোলেঙত,
তর আদরে আদরে-
হিঝু নারি পরানর, হিঝু চিদোর জেবাক সিনি
জাদোক সিনি।
মা সান পোচপানায় তরে থোম লঘে লঘে
বুঘোত বেরে’ই থোম দিয়েন গিরগিচ্য়ে সনমোচ্য়ে আহদে,
আদর গরিহ ধাকঘাজি বঝি
এগামনে দাগি দিম ওলি,
দিভে চোক তর লারেহ এভাক বদি।
গভিন পরানর মর ফোবেয়ে বনিজেচ্ছান
সিদি জেব ত হবালত বিজোনর বোয়েরর সান
ঘুমোন গরিভো তর গভিনত্থুন গভিন।

আয় দুক, আয় তুই, আহওজে ফাঙ গরঙর তরেহ।
বুঘোত মর ঝামদি পর মুওন মর চাবি দি-আহদে।
গদা বুক জুরি উত হিজেক সারিহ
মা-সারা গুরো সান উত হানি হানি।
পরানর থুমোনোর হুরে
ভাঙা ধুদুক ইক্কো আঘে
দি-আহদে বারিদে সিবে
হিয়েত জা’ বল আঘে।
পাগলর সান বাজা
ধুকরু নাধুক ধেকরে ধুক
পাগল ধুদুক বাজা
ভাঙিলে ভাঙোক বুক।
হিজেগে হিজেগরে দিবো বারি
বাচ্য়েবারি উদিভো হিজেক সারিহ
এক সুরে এক সমারে উদিভাক হানি
থরি নপাচ্য়ে সুলোনায়-
আয় দুক, আয় তুই আয়।

ভারি গায়গায় এ মনান।
আর হিচ্ছু নয়,
হায় আয় একবার, রিনি চা’ মুওন মর,
চোক্খুন দে একবার চোঘোত মর,
একরিনি চে’ই থাক হাক্কন এবার।
আর হিচ্ছু নয়,
এ মনান গায়গায়
বানাহ একজন সমার তোগায়।
আয় দুক, তুই হা’য় আয়।
হধা নহবে জনি বঝি থেবে নিরিবিলি
পরানর হুরে দিন-রেইত।
লুলোঙ গরিভার চেলেহ ম মনানর হা’য় জেবে
মনানে তোগায় লুলোঙর সাঙেত।

আয় দুক পরানর ধনান,
তত্য়েই পাদি থোই দুওঙ ফুলোর বিচ্য়নান,
পরানর বধুর থুমোত
জা’ লো এভসঙ আঘে বাজিনেই
সিয়েনিই পারিবে তুই হেই নিগিরেই।

দুঃখ-আবাহন/সন্ধ্যাসংগীত

Photo credit: https://unsplash.com/@coopery

পরানর গিদোর সুর – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


সিয়েন হন সুরে গিত গা’চ, পরানান মর ?
বারিঝে নেই, হরান্য়ে নেই, নেই জারহাল,
দিন নেই, রেইত নেই – অজিরেন, অসামাল
সিয়েন হন সুরে গিত গা’চ, পরানান মর ?

গায় গায় গভিন তারুমো সেরে
বজিনেই নিজো মনে মনে
মাদি হিত্য়ে রিনি চে’ই,
এগই গিত গে’ই গে’ই-
দিন জায়. রেইত জায়, বারিঝে-হরান্য়ে জায়,
তুও গিত নফুরায় ?
মাধাত পরের পাদা, পরের সুগুনো ফুল,
পরের সিরো পানিহ, পরের বেলর সদক,
পরের বারিঝের পানিহ উরউরেই হধক,
হরলাহ মাধা উগুরে দগরি দগরি উধে
বোয়েরত সুগুনো পাদা হররত হরত –
বঝি বঝি সিধু, চামাত্তুও হাজর পরান
গে’ই জার এগামনে, এগই গিত এগই গান।

নলাগের গম আর, এগই গিত এগই গান।
হমলে থামিবে তুই, হ মরে হ তুই পরান !
এলুঙ ঘুমোত গায় গায়-
আবাধা সবন জায় ভাঙি
আবাধা ঘুমোত্তুন উধি
আবাধা সুনিলুঙ সিয়েন হি
পরানর এক হোনাত
সে রভুও সাজি উধের
সে গিত্য়ো নাজি উধের-
হনজনে নসুনোন জেক্কে
চেরোপালাহ অলর জেক্কে
সেই র সেই গিত অনসুর অজিরেন
সনমোচ্য়ে আন্ধারর রুমে রুমে থান সিদে জে’ন।

দিনোর হামত এগামন, চেরোপালাহ লুক-জন,
চেরোপালাহ জা-জা থাম-থাম।
আবাধা পাদিলে হান, ভাজি এঝে সেই গান,
অগুন্তি জনর সেই আবাজর আলাম
তারই পরানর সেরে বানাহ ইক্কো র’ উরে-
এগই সুরে এগই ঘজায়, নেইথুম নেইধুজি-
বে’ক হিঝু এহবাদি, সিয়েনই সুনোঙ বঝি বঝি।

ঘুম জাঙ, জাগি থাঙ, মনর সাঙুদোর চুগি
মুহালা গরিহ হন্নাজানি থায় অনসুর বঝি-
হমলে হমলেত্থুন ধরি,
তারই নিজেঝর র’ জ্য়ে’ন এঝের সাজুরি।
এ পরানর ভাঙা ভিদেত অলর দিবুচ্য়েত
হ’ ইক্কো হুরিহ জায় এক সুরে গায়গায়,
হিজেনি হিত্য়েই তে গিত গা’য়।
চিতপুরি তা রভুও সুনি অলরান হানি হানি
হাবায় আহবিলেজর  বাচ্য়েবারি।

মনান মর, আর হিচ্ছু নসিগিলে তুই,
বানাহ ইক্কোই গিত !
এ দুনিয়ের সয়সাগর সুরো মায়
বানাহ ইক্কোই গত !

সালে ওহইয়ে, ওহইয়ে ও ম পরান,
নপারঙর সুনি আর এগই গিত, এগই গান।

হৃদয়ের গীতিধ্বনি/সন্ধ্যাসংগীত

Photo credit: https://unsplash.com/@cbarbalis

সুঘোর আহবিলেচ– রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


নজিন্যে চোঘোপাদায় রিনি
সুঘে হ’য় বনিজেচ ইরি,
“জুনোহ প’র এমন মিধে,
বাঝির র দুরোর সাজুরে,
আহজি আহজি চোঘোত রেদোর
নরম বরগি গভিন ঘুমোর।
হুঝি ঝিমিলানি প’ন পানিহত গাঙর
নরম হুঝি পাদা নাজে ঝুবুর গাঝর,
লুদিত ফুদি দিভে ফুলে রিনি চা’ন লাজুরি চোঘে
পাদার সেরে লুগেলাক মু হিজেনি হি লাজে,
বোয়েরে দুরোর তারুমোর
লারেই গাঝর সাবা আল্যেঙর
গঙদা হুহলি হুহলি দি জায়
লাজাঙ লাজাঙ ফুলোর।
এমন ইক্কো দোল রেদোত
গায় গায় আঘঙ বঝি,
রেদোর পোচপানাহত্থুন
জুনোহ প’র পরে ঝরি ঝরি।”

মনর বিচ্চোনত পরি গায় গায়
সুক্কানে বানাহ এগই গিত গা’য়,
“গায় গায় মুই বানাহ
হনহ জন নেই ম হায়।”
মুই তারে জেনেই গরহঙ পুঝোর,
“হিয়া, সুক হারে তর আঝা ?”
সুক্কানে হানি চুবে চুবে হ’য়,
“পোচপানাহ, পোচপানাহ,
বে’ক আঘে বে’ক দোল
নেই বানাহ পোচপানাহ।
ফুলুন ফুত্তোন গাঝে গাঝে,
উত্য়োন তারা ঝাগে ঝাগে।
বে’ক আঘে, বে’ক ইধু আঘে-
বানাহ তে নেই, বানাহ নেই তে,
পোচপানাহগান বানাহ নেই।”
নজিন্যে চোঘোপাদায় রিনি
সুঘে হ’য় বনিজেচ ইরি,
“এই সরার পারত, এই রুবো জুনোহ পরহত,
এই ফুলোর তারুমোত, এই পিবির পিবির বোয়েরত,
হনজন নেই মর নিজোর সদর,
সেনে পরানানে চা’য় হানিবার।
সেনে পরানানে চা’য় চুবে চুবে-
মিঝি জেবার এ রেত্যোর লঘে।
নথেব হিচ্ছু প’র অহলে রেত্যো,
থেব বানাহ সিরো পানিহ ফুদোফুদো।
পরানে হয় মেক্কানো সান
হানি হানি জাঙ মরি
চোঘোপানিত জাঙ বদলি।”

সুঘে হ’য়, “এই সুঘোর জনম সারি,
ধাপ জায় দুঘোর জনম লোভার হারি।”
“হিয়া সুক, হেনে সেজান বেধক ধাপ তর ?”
“নেই মর হনহ জন, নেই মর হন সদর।”
“সুক, হারে তুই চা’চ ?
সুক, হারে তুই বাচ্ছাচ ?”
সুক্কানে হানি হানি হ’য় বানাহ,
“পোচপানাহ, পোচপানাহ।”

সুখের বিলাপ/সন্ধ্যাসংগীত

Photo credit: https://unsplash.com/@alexis_antonio

সারিজেয়ে – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

গেলাহক সারি, আর হিচ্ছু নেই হোভার।
গেলাহক সারি, আর হিচ্ছু নেই গেভার।
বানাহ গে’ই গে’ই জার বানাহ হানি হানি জার
ভাঙা-জাঙা মনান মর, বানাহ হ’র বার বার,
“সারি গেলাহক ভেক্কুনে ফেলেই গেলাহক মরেহ,
বুক মর ভাঙি গেলহ, গভা গভা সেলে।”

বিঝু বিদি গেলেহ হরান্যেই হানি হানি হ’য়
“ফুলুন গেলাহক, পেইক্খুন গেলাহক-
সারি গেলাহক ভেক্কুনে ফেলেই গেলাহক মরেহ।”
দিন ফুরেই গেলেহ রেদে অলর অহয়,
হানি হানি বানাহ তে হ’য়,
“দিন গেলহ, বেল গেলহ, সদক্কানো গেলহ মিলেই-
বানাহ গায় গায় মুই, বেঘে গেলাহক মরেহ ফেলেই।”

জ্য়েন থুত্য়ে বোয়ের হানে মরা বাঝত হেনেই আভর
উধের সারাল্য়ে র মর মনর তারুমোত আহবিলেজর,
“সারি গেলাহক, ফেলেই গেলাহক,
এগে এগে বেঘে সুদোনাল সিনিলাক।”

মেলা সেজে জ্য়েন
ভাঙা-তেনজঙ মেজাঙ
পরি থায় ইন্ধি-উন্ধি-
হাজর-বিজোর তোলোয়ানিহ
বেরান বেঘে উহরি-মারি-
হনজনে নহচান তারারে ফিরি,
বেঘে গঙি জান জে জার পত ধরি।

পুরোন হাজর ফাদা হাবরর সান
মরেহ ফেলেই গেলাহক,
হধক চে’ই রোলুঙ পানিহ চেরাঙ চেরাঙ চোঘে-
সমার মরেহ হনজনে নহনোজোলাক।

সেনে পরানানে বানাহ গা’য়, বানাহ হানে, বানাহ হ’য়,
“মরেহ ফেলেই গেলাহক,
বেঘে মরেহ ফেলেই গেলাহক
ভেক্কুনে ফেলেই গেলাহক।”

তারাহহি একবার চেয়োন নাহি ফিরি ?
পারাহপাঙ চেয়োন।
ভুলেহি একবার তারার পোচ্ছেগি চোঘোপানিহ ?
পারাহপাঙ পোচ্ছেগি।
একবার ভাপ্পোন পারাহপাঙ-
নেজেই লঘে- বান্নোই হানিবো গায় গায়।
সিয়েনোই ভাপ্পোন্নে পারাহপাঙ।
সেনে চেয়োন ফিরি।
সে জেরে ? সে জেরে !
সেনেই তারাহ আহচ্চোন জ্য়েন।
একফুদো চোঘোপানিহ সুগেল ঝিমিদোত।
সে জেরে ? সে জেরে !
গেলাহক ফেলেই।
সে জেরে ? সে জেরে !
ফুল গেলহ, পেইক গেলহ, বেল গেলহ, সদক গেলহ,
বে’ক গেলহ, ভেক্কানি গেলহ-
মনান বনিজেচ সারি হোই উধে,
“ভেক্কুনে গেলাহক ফেলেই,
মরেই গেলাহক ফেলেই।”

পরিত্যক্ত/সন্ধ্যাসংগীত

Photo credit: https://unsplash.com/@manueljota

আঝার নিরাঝা – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর


ওরে আঝা, হিত্যেই তর উত্যে-তেঙেরা সান!
নিরাঝারই সান জেন
মুহালা হিত্যেই-
জ্যেন লুগেই লুগেই
জ্যেন চিদেই চিদেই
জ্যেন দরেই দরেই সমল্লি তুই পরান ঘরত।
এভে না ফিরি জেবে ভাবি উদো নপাচ,
আঝা, আঝা তুই হেত্তেই হারে দরাচ।
এলে এচ্চে দিবাত্যে জে সুক আ বিচ্ছেচ.
নিজেই সিয়েন তুই নহগরর বিচ্ছেচ,
সেনে তুই সেজান লারে লারে,
সেনে পরের বুঘোত্তুন লারে দুঘোর নিঝেচ।
মনর হুরে লুজুরুক গরিহ বঝি
চেরাং চেরাং চোঘোপানিহ-
“এঝান দিন জেব বিদি
এচ্চে জেব বিদি, হেল্লে লুহঙিবোগি
দুক জেব বিদি, সুক এভ ফিরি।”
হিয়া আঝা, হেত্যেই মরে মিঝে মন বুঝেই দেনা।
মুই হি দরাঙ দুঘোরে-মনদুঘোরে,
মুই হি নহচিনোঙ তারারে।
তারাহ হি বেঘে নয় মর সদর।
সালে, আঝা হি তর দর মনর।
সালে বঝি মর হুরে অজিরেন চুবেচুবে
হেনে দুওর আঝা, দুওর বিচ্ছেচ মিঝে।

সুনো মরে আঝা, মর চবাসালত বঝি
“আর হদ দুক, পেভে আজাগরিহ,
মনর জে হত্থাঘান পুরিনেই ওহইয়ে আঙুরি
জিয়েনর নএল সেপ পুরিবের নুও গরিহ
সিয়েনো পেভ নুও পরান পুরিবেত্যেই আরেকবার ফিরি।”

ন দরেচ পরান
দুক-দরত বেঘে হি
মর নিজোর হত্থা নয় ?
সালে হেত্যেই মুহালা ?
হেত্যেই উত্যে-তেঙেরা ?
সালে হেত্যেই এহদক দোরেই দোরেই
সমল্লি মর মনর ঘরত ?

আশার নৈরাশ্য/সন্ধ্যাসংগীত

Photo credit: https://unsplash.com/@ripato